জামালগঞ্জে সেলাইয়ের কাজ করে সংসার চালাচ্ছেন জীবন সংগ্রামী সবিতা

প্রকাশিত: ৫:১২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২০

মো. ওয়ালী উল্লাহ সরকার, জামালগঞ্জ
জামালগঞ্জ উপজেলার জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের সাচনা গ্রামের সবিতা রানী দাস (৪৫) মনের প্রবল শক্তি ও সাহস নিয়ে প্রতিনিয়ত সেলাই মেশিনে পা চালিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন সামনের দিকে। যৌবনে যেমন বাবার বাড়িতে ছিলেন কর্মঠ তেমনি অভাবের সংসারে স্বামী মারা গেলেও বসে থাকেননি তিনি। অভাবকে জয় করার প্রবল মনোবল নিয়ে তিনি সেলাই কাজ শিখে একটি পুরাতন সেলাই মেশিন কিনে ছেলেমেয়েদের জামা-পায়জামা তৈরি করে সেলাইয়ের কাজ শুরু করেন। সাংসারের চাকা সচল রাখতে অবিরাম সেলাই মেশিনের চাকা ঘুরিয়ে যাচ্ছেন সবিতা রানী। তাঁর ১ মেয়ে ও ১ ছেলে রয়েছে। ৬ বছর আগে স্বামী মুকুল দাস হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। তিনি মৃত্যুর পূর্বে একটি ফার্মে কাজ করতেন। ভালোই চলছিল সংসার জীবন। স্বামীর মৃত্যুতে আচমকা দুর্ঘটনায় পতিত হলে ছেলেমেয়ে নিয়ে শুরু হয় দুর্বিষহ জীবন। সবিতা রানী তখন ছেলে, মেয়ে নিয়ে বাঁচার জন্য নতুন পথ খোঁজতে থাকেন। নিরূপায় সবিতা বিধবা ভাতা পেতে বারবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। তার সহযোগিতায় এগিয়ে আসেননি কেউ।
এমন সময় একজনের কাছে জানতে পারেন জামালগঞ্জের কলেজের পাশে এক মহিলা সেলাই প্রশিক্ষণ দেন। সবিতা সেখানে ৬ মাসের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। পরে সেলাই মেশিনের অভাবে কিছুদিন অন্যের মেশিনে কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে বেসরকারি এনজিও সংস্থা আশা থেকে সেলাই মেশিন কেনার জন্য ১০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে একটি সেলাই মেশিন ক্রয় করেন। ধীরে ধীরে মেয়েদের নতুন পোশাক তৈরির কাজে হাত দিয়ে সংসারের হাল ধরেন তিনি। তার মেয়ে ফাল্গুনী দাস (অনামিকা) সাচনা বাজার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.৮৬ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। ছোট ছেলে সুশান্ত দাস জামালগঞ্জ সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছে।
জীবন সংগ্রামী সবিতা রানী দাস জানান, সেলাইয়ের কাজ করে প্রতিদিন ১০০ থেকে ২০০ টাকা আয় করেন। স্বামীর মৃত্যুর পর রোজগারের কোনো পথ না থাকায় নিজেই বুদ্ধি খাটিয়ে সেলাইয়ের প্রশিক্ষণ নেন। তখন মানসিকভাবে ভেঙ্গে না পড়ে সেলাইয়ের কাজে হাত দিয়ে ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার খরচ চালিয়ে কোনো রকম সংসার চালিয়ে আসছেন। সদ্য এসএসসি পাশ করা মেয়ে সিলেটের ভালো কলেজে পড়তে ইচ্ছুক থাকলেও অর্থের অভাবে ভর্তি করানো সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

এই সংবাদটি 46 বার পঠিত হয়েছে