অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, বিপণন এবং নদী/ খালের তীরবর্তী এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদকল্পে সচেতনতা বৃদ্ধি শীর্ষক মতবিনিময় সভা

প্রকাশিত: ৩:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০২০

মিজানুর রহমান মিজান:
সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও বিপণন এবং নদী/ খালের তীরবর্তী এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদকল্পে সচেতনতা বৃদ্ধি শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে গতকাল সোমবার দুপুর ২ ঘটিকায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে সাংবাদিক, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও পরিবেশ কর্মীদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। সভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট উপজেলার নির্বাহী অফিসারগণ ও অংশগ্রহণ করেন।
সভায় সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলার নদী ও খালের তীরবর্তী এলাকায় অবৈধ স্থাপনার ও উচ্ছেদ কার্যক্রমের সামগ্রিক চিত্র তুলে ধরে সচিত্র প্রতিবেদন তুলে ধরেন অতি: জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট । মতবিনিময় সভায় উপস্থিত বক্তারা সুনামগঞ্জ জেলার সকল উপজেলা বিদ্যমান অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও সুরমা নদী, যাদুকাটা নদী, রক্তি নদী ধোপজান সহ নদী/খাল তীরবর্তীতে অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনা অপসারণ, বালু স্তুপীকরণ ও অবৈধভাবে ড্রেজারের মাধ্যমে বালু খনন বন্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত করে সরকারী সম্পত্তি উদ্ধার ও পরিবেশ বিপর্যয় থেকে রক্ষায় যথাযথ ভূমিকা নিতে মতামত ব্যক্ত করেন। সেই সাথে পুনরায় অবৈধ স্থাপনা যাতে নির্মাণ না করা হয় সেদিকে পুলিশ প্রশাসনের কঠোর নজরদারি রাখতে মত প্রকাশ করেন। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ এসময় সুনামগঞ্জ শহরের বুক চিরে যাওয়া কামারখালসহ বেদখল হয়ে যাওয়া সকল খালগুলো দ্রুত উদ্ধারের জোর দাবি জানান।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ বলেন, সুনামগঞ্জের ধোপাজান নদী (বালু মহাল) সহ জেলার ৭ টি উপ-নদীতে বাল্কহেডসহ কোন নৌযান প্রবেশ করতে পারবেনা। বিশেষ প্রয়োজনে প্রবেশ করলে ফিটনেস ও রোডপারমিট থাকতে হবে। দেশের ও জনগনের ক্ষতি করে কেউ রাতের আঁধারে দেশের সম্পদ আতœসাত করতে পারবে না। স্থানীয় বালু মহালগুলোতে বহিরাগত শ্রমিক প্রবেশ করতে না পারে সেজন্যে জনসচেতনতা সৃষ্টি করার আহবান জানান তিনি ।
মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন-পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান (বিপিএম), ২৮ ব্যাটালিয়ন সুনামগঞ্জের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মাসুদুল আলম, পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ও সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি শামসুন্নাহার বেগম শাহানা রব্বানী, তাহিরপুর ও বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার বৃন্দ। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের সুনামগঞ্জ জেলা সভাপতি অ্যাড. শফিকুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও দৈনিক সুনামকন্ঠ’র সম্পাদক ও প্রকাশক বিজন সেন রায়, সিনিয়র সাংবাদিক মিজানুর রহমান মিজান, বিশ^ম্ভরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বপন কুমার বর্মন, দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর’র সম্পাদক ও প্রকাশক পঙ্কজ কান্তি দে, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, ছাতক প্রেসক্লাবের সেক্রেটারী আব্দুল আলীম, জগন্নথপুর প্রেসক্লাবের সেক্রেটারী আব্দুল হাই, দৈনিক হাওরাঞ্চলের কথা’র সম্পাদক ও প্রকাশক মাহতাব উদ্দিন তালুকদার, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক, সময় টিভি’র জেলা প্রতিনিধি হিমাদ্রী শেখর ভদ্র, মোহনা টিভির প্রতিনিধি কুলেন্দু শেখর দাস, সাংবাদিক মাসুম হেলাল, সাংবাদিক হাবিব সরোয়ার আজাদ প্রমুখ।

এই সংবাদটি 22 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ