দিরাইয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ আহত অর্ধশত

প্রকাশিত: ৩:০৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০২০


মিজানুর রহমান মিজান:
সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার মধুরাপুর গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ৫০ জন। আহতদের উদ্বার করে দিরাই উপজেলা সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এদের মধ্যে ১৫জনের অবস্থা আশংকা হওয়ায় তাদের সিলেট প্রেরণ করা হয়েছে।
সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া ইউনিয়নের মধুরাপুর এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় নূর মোহাম্মদ (৫০) নিহত হয়েছেন, তিনি ভাটিপাড়া এলাকার মধুরাপুর গ্রামের বাসিন্দা। মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুই ঘণ্টাব্যাপী চলে এ সংঘর্ষ।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১০ থেকে ১২ বছর ধরে দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া মধুরাপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভাটিপাড়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরী পক্ষের দিল হক ও একই এলাকার যুক্তরাজ্য প্রবাসীর মুকিত চৌধুরী পক্ষের নূর জালালের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।
এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে একাধিক মামলা মোকদ্দমা চলমান আছে। গত ২৮/০৮/২০২০ইং তারিখে খালের উত্তর পাড়া হানাফিয়া জামে মসজিদে জুমআর নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হবার সময় দিলহকের নেতৃত্বে একদল লোক মহিবুরের উপর আক্রমন করে গুরুতর জখম করে। আহত মুহিবুরকে বাঁচাতে এগিয়ে এসে মসজিদের ইমাম মাও: আফজল হুসাইন, মুসল্লি আইনুদ্দিন, তোফায়েল ও আহত হন। আহত মহিবুরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হয়। এবিষয়ে মহিবুরের চাচা আবু হানিফ বাদী হয়ে দিরাই থানায় মামলা করেন। মামলা নং জিআর-৮৭/২০২০ইং ধারা ১৪৩/৪৪৮/ ৩২৩/ ৩২৪/৩২৬/৪২৭/১১৪ দ:বি:। উক্ত মামলায় বিগত ১৩/০৯/২০২০ এবং ২৪/০৯/২০২০ইং তারিখে মাননীয় আদালতে হাজিরা দিয়ে জামিনে এসে দিলহকের লোকেরা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে গত ২৮/০৯/২০২০ইং তারিখে হামলা চালিয়ে মামলার বাদী আবু হানিফ, জখমী স্বাক্ষী মুহিবুর রহমান, ইকরাম আলী, ইব্রাহিম,আব্দুর মতলিব, আ: সহিদ, আ: কাই্য়ুম, জিয়াউর রহমান,শাহ আলম, দিনইসলাম, রাকিবআলী, পরশনুর, করিম, আ:জলিল, মিজাজ আলী সিরজানুর, তাজিরনুর, শরীয়ত আলী, আ: মছব্বির, সহিবুর গংদের বসত বাড়ীতে ভাংচুর করে তাদেকে গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দিলে তারা পাশ^বর্তী কামালপুর গ্রামে তাদের নিকঠাতœীয়দের বাড়ীতে আশ্রয় নেন। যেকোন মুহুর্তে তাদের লোকজনের উপর হামলা হতে পারে মর্মে অবগত করে এ বিষয়ে গত ০৮/১০/২০ইং তারিখে আব্দুল খালেক তালুকদার নিজেদের জান ও মালের নিরাপত্তা চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
এ নিয়ে কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। পূর্ব শত্রুতার জেরে উত্তেজনা চরমে পৌঁছালে দিল হক ও নূর জালালের দুই পক্ষের লোকজন মঙ্গলবার সকাল থেকে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে নূর জালালের ভাই নুর মোহাম্মদের মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় কমপক্ষে ৪৫ জন আহত হয়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। এ ঘটনায় সংক্ষুব্ধ নিহতের আত্মীয় স্বজন প্রতিপক্ষের মালেক নূর, ওয়াজিদ নূর, রহিম, লোকমান, মুক্তাদির ও রামিম কে আটক করে। সংবাদ পেয়ে দিরাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। আহতদের উদ্ধার করে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ, সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে ১০ থেকে ১৫ জনের অবস্থা আশংকাজনক । ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আশরাফুল ইসলাম। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত থানা পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কয়েকজনকে আটক করেছে, এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এই সংবাদটি 56 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ