ঝুলন্ত তার যাবে মাটির নিচে, অপসারণ বন্ধ

প্রকাশিত: ২:১৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০২০

 

সু:ডাকডেস্ক:
ইন্টারনেট ব্যবসায়ী ও ক্যাবল অপারেটরদের চাপের মুখে ঝুলন্ত তার কাটার অভিযান আপাতত স্থগিত করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। দুপক্ষের বৈঠকে সমঝোতার পর এ ঘোষণা দেওয়া হয়।অন্যদিকে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) ও ক্যাবল অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) নেতারা মাটির নিচ দিয়ে তার নিতে রাজি হয়েছেন।রোববার (১৮ অক্টোবর) ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নগরভবনে মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের সঙ্গে সংগঠন দুটির বৈঠকে এ সমঝোতা হয়।এর আগে আগস্ট থেকে দুই সিটি করপোরেশন ঢাকার ঝুলন্ত তার অপসারণ শুরু করে। উত্তর সিটির সঙ্গে সমঝোতার পর তার কাটা বন্ধ করলেও দক্ষিণ সিটিতে তা চলমান ছিল। এ অবস্থার আইএসপিএবি ও কোয়াব ১৮ অক্টোবর থেকে ইন্টারনেট ও টিভি ক্যাবল সেবা তিন ঘণ্টা করে বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়। এ অবস্থায় সরকারের উচ্চ পর্যায়ের হস্তক্ষেপে বৈঠকে বসতে রাজি হন দক্ষিণ সিটির মেয়র। সে আশ্বাসের ভিত্তিতেই সেবাদানকারী দুটি সংগঠন ধর্মঘটের কর্মসূচি স্থগিত করে। বৈঠকের পর কেবল অপারেটরদের সংগঠন আইএসপিএবি বলছে, তাদের দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনও বলছে, ঝুলন্ত তার মাটির নিচে সরিয়ে নিতে রাজি হয়েছে আইএসপিএবি ও কোয়াব।বৈঠকের পর জানানো হয়, ক্যাবল অপারেটররা সোমবার (১৯ অক্টোবর) থেকেই মাটির নিচ দিয়ে তার নেওয়ার কাজ শুরু করবে এবং এটি নভেম্বর মাসের মধ্যে সম্পন্ন হবে।বৈঠক শেষে মেয়র তাপস বলেন, দক্ষিণ সিটির পক্ষ থেকে রাস্তার ঝুলন্ত তার আর কাটা হবে না। ইন্টারনেট প্রোভাইডাররা নিজ খরচে মাটির নিচ দিয়ে তারের সংযোগ নেবেন এবং সঙ্গে সঙ্গে ওপরে ঝুলন্ত তার কেটে দেবেন। আর এটা আগামী নভেম্বরের মধ্যেই তারা শেষ করবেন বলে আমাদের জানিয়েছেন।আইএসপিএবি সভাপতি এম এ হাকিম বলেন, আমরা শিগগিরই ঝুলন্ত তার নামিয়ে মাটির নিচে সংযোগের কাজ শুরু করব। আশা করি নভেম্বরের মধ্যেই পাইলট প্রকল্প হিসেবে কয়েকটি রাস্তার তার মাটির নিচে নেওয়ার কাজ শেষ হবে। কিছু সড়কে কাজ করতে গিয়ে হয়তো নভেম্বর মাস অতিক্রম হতে পারে। আমাদের মূল লক্ষ্য থাকবে সুন্দর নগরী এবং নিরবচ্ছিন্ন সেবা দেওয়া।মেয়র তাপস জানান, মাটির নিচে তার নিতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে, বিনা খরচে তাদের সেই সুযোগ করে দেবে। রাস্তা, ফুটপাত বা নর্দমা ব্যবহারের প্রয়োজন আমরা সেই সুযোগ করে দেবে। যাতে করে তারা ওপর থেকে তারগুলো অপসারণ করে ভূগর্ভস্থ জায়গায় নিয়ে যেতে পারে।বৃহত্তর স্বার্থে তারের জঙ্গল থেকে নগরবাসীকে মুক্ত করার জন্য সুন্দর ঢাকা করার লক্ষ্যে আমরা সব রকম ছাড় দেওয়ার কথা বলেন মেয়র। এমনকি সড়ক খনন করার ক্ষতিপূরণ ফি নেবেন না বলে জানান।

 

এই সংবাদটি 3 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ