দিরাইয়ের চাঞ্চল্যকর নূর মোহাম্মদ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ৩৫ জন কারাগারে

প্রকাশিত: ২:২১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:
সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার মধুরাপুর গ্রামের চাঞ্চল্যকর নূর মোহাম্মদ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ৩৫ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গতকাল ২২/১০/২০ইং বৃহস্পতিবার সকালে আমল গ্রহনকারী জুডিসিয়্যাল ম্যাজিষ্ট্রেট (দিরাই) আদালতে হত্যা মামলার এজাহারে অভিযুক্ত ৩৫ জন স্বেচ্ছায় আতœসমর্পন করে জামিনের প্রার্থনা করলে মাননীয় আদালত আসামীদের জামিনের প্রার্থনা নাকচ করে সকলকে জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন। তারা হলো: ফখরুল, আব্দুলতাজ, তফুর, শফিক, রাজাব উদ্দিন, সুহেল, আব্দুল বাছির, আব্দুল মুক্তাদির, সবুজ, মনির, তমিজ, মমিন, বশির, বাতিন, সামছুননুর, আমজদ, মাহাবুর, আব্দুস সালাম, মুস্তায়েল, শামসু, নুরউদ্দিন, মুজাহিদ, মুতিরহমান, রুহেল ফয়জুননুর, হাবিকুল, আব্দুল হাই, তোয়াহিদ, কাশেম, রাজ আলী, জফুর আলম, আমিনুর, এমদাদুল, তপন এবং আইনুল।এ নিয়ে এই ঘটনায় ৫০জনকে কারাগারে পাঠানো হলো।এর আগে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মিফতা, আতাবুর, এশরাম, মালেকনুর, রহিম, তামিম, ইলিয়াছ, ওয়াজিদনুর, সুজাআলম, আবু সাদেক, আজিজুর রহমান, নুরুলআমিন, শফিকনুর, মনরাজমিয়া, আব্দুল তাওহীদকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়।
মামলার বিবরনে প্রকাশ, সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া ইউনিয়নের মধুরাপুর গ্রামে বিগত ১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ৮ ঘটিকায় স্থানীয় শাহজালাল বাজারের মাছ বাজারে মাছ বিক্রির টাকা চাইতে গিয়ে সন্ত্রাসী দিলহক বাহিনীর হামলায় মাছ বিক্রেতা নূর মোহাম্মদ (৫০) নিহত এবং নিহতের পুত্র হীরন মিয়া গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় নিহত নূর মোহাম্মদের পুত্র হীরন মিয়া বাদী হয়ে দিরাই থানায় সন্ত্রাসী দিলহক বাহিনীর ৯৯ জনের বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ১৪৩/৩২৩/৩২৬/৩০২/৩০৭/৫০৬/৩৪ ধারায় হত্যা মামলা নং জিআর-১০১/২০২০ইং দায়ের করেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া মধুরাপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভাটিপাড়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরী পক্ষের দিল হক ও একই এলাকার যুক্তরাজ্য প্রবাসীর মুকিত চৌধুরী পক্ষের নূর জালালের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।
এ নিয়ে কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। ঘটনার দিন সন্ত্রাসী দিলহক নিহত নুর মোহাম্মদের নিকট হতে মাছ কিনে টাকা না দিয়ে চলে যেতে চাইলে নুর মোহাম্মদ মাছ বিক্রির টাকা চাওয়া মাত্রই সন্ত্রাসী দিলহক ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী দেশীয় অশ্রসস্ত্র নিয়ে মাছ বিক্রেতা নূর মোহাম্মদ (৫০)ও তার পুত্র হীরন মিয়ার উপর হামলা চালিয়ে নূর মোহাম্মদকে প্রানে মেরে ফেলে। সংবাদ পেয়ে নিহতের ভাই নূর জালাল ঘটনাস্থলে আসামাত্র সন্ত্রাসী দিল হক ও তার পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনায় কমপক্ষে ৪৫ জন আহত হয়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। ঘটনার সাথে সাথেই দিরাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। আহতদের উদ্ধার করে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। নিহত নুর মোহাম্মদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল পাঠানো হয়। থানা পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ঘটনাস্থল হতে ১৫ জনকে আটক করে। ঘটনার পরপর এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার লক্ষ্যে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আশরাফুল ইসলাম।

 

এই সংবাদটি 96 বার পঠিত হয়েছে