দিরাইয়ে গর্তে পড়ে মাদরাসা শিক্ষকের মৃত্যু

প্রকাশিত: ২:০৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দুই দিনের মাথায় সুনামগঞ্জের দিরাই পৌর এলাকার সুজানগরে পানিতে ডুবে আরেক মাদরাসা শিক্ষককের মৃত্যু হয়েছে। তিনি সুজানগর দারুল কুরআন মাদরাসার শিক্ষক ও গ্রামের চেরাগ আলীর ছেলে মিজানুর রহমান (২৮)। শনিবার সন্ধ্যায় স্বজনরা চাচার বাড়ির সামনের গর্ত থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন। মিজান কওমি মাদরাসায় দাওরায়ে হাদীস উত্তীর্ণ। তিনি ছোট বেলা থেকেই মৃগী রোগে আক্রান্ত ছিলেন। মিজানুর রহমানের চাচাতো ভাই বীর মুক্তিযুদ্ধা সিরাজুল ইসলাম জানান, মৃগী রোগী মিজানুর প্রতিদিনের মতো বিকেল ৩টার পরে আমার বড় ভাইয়ের বাড়ি থেকে টিউশনি শেষে নিজ বাড়িতে আসার সময় সবার অগোচরে বাড়ির পাশে গর্তে পড়ে যান। সন্ধ্যা বেলা বাড়িতে না ফেরায় ফোন করলে তার ব্যবহৃত মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর বড় ভাইয়ের বাড়ির পাশে গর্তের পানিতে মিজানের লাশ পাওয়া যায়। রোববার সকাল সাড়ে ৯টায় সুজানগর শাহী ঈদগাহে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে নিহতের দাফন সম্পন্ন হয়। জানাজা নামাজে ইমামতি করেন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি শায়খুল হাদীস মাওলানা নুরুল ইসলাম খান। ঘটনার তিন দিন আগে সুজানগর গ্রামের জায়েদ (২৮) নামে আরেক যুবকের একইভাবে বাড়ির পাশে নদীর পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে। পরের দিন ভোর বেলা তার লাশ পাওয়া যায়। ওই যুবকটিও মৃগী রোগী ছিলেন। মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে পানিতে ডুবে দুই যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় শোকাহত এলাকাবাসী। একই গ্রামের দু’জনের পানিতে পড়ে মৃত্যুর বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে দিরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম চৌধুরী বলেন, বিষয়টি মর্মান্তিক। দু’জনই মৃগী রোগী ছিল, তাদের পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই পারিবারিকভাবে তাদের দাফন করা হয়েছে।

 

এই সংবাদটি 11 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ