সুনামগঞ্জ পৌরসভায় ভোটের হাওয়া

প্রকাশিত: ৩:৩৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০


সোলেমান কবীর:
পৌরসভা বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় শহর এলাকার সরকার বা শহর পরিচালনাকারি স্বায়ত্ত্বশাসিত স্থানীয় সরকার সংস্থা। পৌরসভার প্রশাসনিক কাঠামোর ক্রমিক পদবী হচ্ছে ‘মেয়র’ সরাসরি নাগরিকদের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি এবং পৌরসভার প্রধান। অনেকেই মেয়রকে পৌরপিতা বলে থাকেন। কাউন্সিলর সরাসরি নাগরিকদের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। বাংলাদেশে তিন ধরণের পৌরসভা রয়েছে। ‘ক’ শ্রেণী ‘খ’ শ্রেণী ‘গ’ শ্রেণী।
সুনামগঞ্জ পৌরসভা ‘ক’ শ্রেণীভুক্ত অতি পুরাতন একটি পৌরসভা। ১৯১৯ সালে সুনামগঞ্জ পৌরসভা স্থাপিত হয়। অত্র পৌরসভার আয়তন ২২.১৭ বর্গ কিলোমিটার। বর্তমানে জনসংখ্যা ৮৭,৫৭০জন। শহরটির গাঁঘেঁষে সুরমা নদী প্রবাহিত হয়েছে। প্রাকৃতিক পরিবেশ শহরটিকে প্রাণবন্ত করে রেখেছে। শিক্ষা সাংস্কৃতিতে এই শহরের রয়েছে গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস।
ইতিমধ্যেই সারাদেশে প্রথম ধাপের ২৫টি পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। মেয়াদ উত্তীর্ণ পৌরসভার নির্বাচন হবে সঠিক সময়ে এমনটাই জানা যাচ্ছে, নির্বাচন কমিশনের তথ্য সূত্রে। পরবর্তীতে যেসব পৌরসভায় ভোট অনুষ্ঠানের সম্ভাবনা রয়েছে সেগুলোর মধ্যে সুনামগঞ্জ পৌরসভাও রয়েছে। সুনামগঞ্জ পৌরসভার তথ্য মতে জানা যায়, ২০২১ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি সুনামগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত পরিষদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ।
এদিকে, সুনামগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ এখনো ঠিক না হলেও বইতে শুরু করেছে ভোটের হাওয়া। সম্ভাব্য প্রার্থীরা নানাভাবে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে বিভিন্ন ওয়ার্ডের পাড়া- মহল্লা, চায়ের দোকান, মুদির দোকান ,বাজার, রাস্তার মোড়ে জমে উঠেছে ভোটকেন্দ্রিক আড্ডা। চলছে ভোটের হিসাব নিকাশ, কে হচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ইত্যাদি নানা বিষয় নিয়ে মেতে উঠেছেন সাধারণ ভোটাররা। পাশাপাশি সম্ভাব্য প্রার্থীদের উৎসাহিত করছেন । চলছে আসন্ন পৌরসভার নির্বাচনের প্রস্তুতি। সম্ভাব্য কাউন্সিল প্রার্থীরা নির্বাচনী জনসংযোগ শুরু করেছেন। পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডবাসীও আগাম তৎপর। নির্বাচনকে ঘিরে চলছে নানা পরিকল্পনা। সরব হচ্ছে বিভিন্ন ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লা । সম্ভাব্য প্রার্থীদের কর্মী ও নির্বাচনের পলিসি মেকার নিয়ে যাচাই বাচাই শুরু হয়েছে । চলছে ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে শলাপরামর্শ । এবারের নির্বাচনে নতুন ভোটাররা সবার টার্গেট হতে পারেন এমনটাই শোনা যাচ্ছে । এছাড়াও একই ওয়ার্ডে অধিক সংখ্যক কাউন্সিলর প্রার্থী হওয়ায় ভোটাররা পড়েছেন বিভ্রান্তিতে। বিব্রতকর অবস্থায় থাকা ভোটাররা কেউ বুদ্ধির ছক আঁকছেন আবার কেউ ভোটের অংক কষছেন । সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাঁদের প্রচার, প্রচারণায় সালাম,আদাব আর শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন ভোটাদের মাঝে। উঠানবৈঠক ছাড়াও আত্মীয়-স্বজনদের বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নিয়ে দেখা সাক্ষাৎ করছেন। পালাক্রমে তাঁরা ওয়ার্ডের বিভিন্ন মহল্লায় কোলাকুলি সেরে নির্বাচনি ইশতেহার ও উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। বসে নেই কাউন্সিলর প্রার্থীদের আত্মীয়-স্বজনরা। তাঁরাও যাচ্ছেন ওয়ার্ডের প্রত্যেক ঘরে ঘরে তাঁদের প্রার্থীদের সালাম,আদাব শুভেচ্ছার পাশাপাশি যোগ্যতা ও দক্ষতার গুণকীর্তণ করছেন ।
পক্ষান্তরে, নিরব ভোটাররা নির্বাচন নিয়ে এখনই কিছু ভাবছেন না। এছাড়া চলমান করোনা পরিস্থিতি, বিগত বন্যা, অস্থিতিশীল বর্তমান বাজার পরিস্থিতিও নির্বাচনের উপর প্রভাব ফেলেছে। অনেকের মাঝেই নির্বাচন নিয়ে অনিহা দেখা যাচ্ছে। ফলস্বরূপ নির্বাচন নিয়ে সাধারণ ভোটররা নিরবতা পালন করছেন। একসময় নির্বাচন ছিল প্রাণবন্ত, উৎসবমুখর। সময়ের সাথে সাথে দৃশ্যপট পাল্টেছে। বিভিন্ন কারণে নির্বাচন তার জৌলুস হারিয়েছে। এছাড়া যোগ্যতার যাঁচাই বাছাইয়ে সঠিক প্রার্থী না পাওয়াতে নির্বাচনবিমূখ অনেকেই। তবে বর্তমান সময়ের দাবি আলোকিত সমাজ গড়ার প্রত্যয়ে তরুণ, শিক্ষিত, সৎ,কর্মদক্ষ, নতুন প্রার্থী বেরিয়ে আসলে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে সমাজ বিনির্মাণে । গতিশীল ও অব্যাহত থাকবে উন্নয়নের ধারা, এমনটাই প্রত্যাশা করছেন নগরবাসী। বর্তমান পেক্ষাপটে, আগামী নির্বাচনে কে হবেন পৌরপিতা এ নিয়ে উৎসুক ভোটাদের মাঝে শুরু হয়েছে গুঞ্জন, বাড়ছে জানার আগ্রহ । বর্তমান পৌর মেয়র নাদের বখত ব্যাতীত অদ্যাবধি সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী কারো নাম তেমনভাবে শোনা যাচ্ছেনা। তাই, আলোচনার শীর্ষেই থাকছেন বর্তমান মেয়র নাদের বখ্ত।
নির্বাচনী মাঠে আছেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মরহুম হুসেন বখত এঁর ছেলে, সুনামগঞ্জের গণমানুষের নেতা সাবেক পৌর চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মহরুম মনোয়ার বখত নেক ও দুর্নীতিমুক্ত পৌরসভা গড়ার লক্ষ্যে অঙ্গিকারবদ্ধ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, টানা দুইবারের সফল মেয়র অকাল প্রয়াত আয়ূব বখ্ত জগলুল -এঁর ছোট ভাই বর্তমান মেয়র নাদের বখ্ত। মেয়র নাদের বখত বলেন, পৌরবাসী আমার নিঃশ্বাস । বৈশ্বিক মহামারি করোনা আর উপুর্যুপরি বন্যায় বিপর্যস্ত পৌরবাসীর প্রত্যেকটা ওয়ার্ডের ঘরে ঘরে গিয়ে তাঁদের দুঃখ-কষ্ট আর দুর্দশা আমি নিজের চোখে দেখেছি । স্বল্প সময়ে, ছোট্ট পরিসরে আমি পৌরবাসীর জন্য আমার সাধ্যমত সহযোগিতার হাত প্রসারিত করেছি। পৌরবাসীও আমাকে ভালবেসে সহযোগিতা করেছেন। আমি সবসময় পৌরবাসীর পাশে আছি এবং আমরণ থাকতে চাই। আমি পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডের রাস্তা-ঘাটের টেকসই উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আমি পৌরসভার উন্নয়নের ধারাবাহিতা অব্যাহত রাখতে চাই। আমার নেত্রী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছি । আমার বিশ্বাস দলীয় মনোনয়ন আমিই পাব। নৌকা প্রতীক পেলে আগামী নির্বাচনে আমি জয়লাভ করব ইনশাআল্লাহ।
সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে দুইবার নির্বাচন করলেও এবার নির্বাচনে না আসতে পারেন এমনটিই জানালেন সুনামগঞ্জের আলোকিত মানুষ, শিক্ষাবিদ, বহুমাত্রিক গুণের অধিকারী অধ্যক্ষ মো.শেরগুল আহমেদ। তাঁর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আপাতত নির্বাচন করার কোন ইচ্ছা নেই।
স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সুনামগঞ্জ পৌরসভার বিগত দু‘টি নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচন করেছেন দেওয়ান গণিউল সালাদিন, কিন্ত প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেও জয়লাভ করতে পারেননি। পারিবারিক ঐতিহ্যসূত্রে তিনি হাছন রাজার প্রপৌত্র ও টানা তিনবারের নির্বাচিত জননন্দিত চেয়ারম্যান অকাল প্রয়াত মমিনুল মউজদীনের ছোট ভাই। দেওয়ান গণিউল সালাদিনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে সালাদিন জানান, ‘আমি বর্তমানে ঢাকায় আছি, ঢাকা থেকে এসে পারিবারিকভাবে বসে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।’
এদিকে, হাছন রাজার আরেক উত্তরসূরী বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক,আওয়ামীলীগ নেতা দেওয়ান ইমমাদ রেজা চৌধুরী মেয়র প্রার্থী হিসেবে আসতে পারেন বলে লোকমুখে শোনা যাচ্ছে। তাঁর সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান,“ আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক ‘নৌকা’ পেলে আমি নির্বাচন করব”।
প্রয়াত জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রইছ অ্যাডভোকেট এঁর ছেলে এবং সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এনামুল কবীর ইমন’র অগ্রজ, সাবেক পি.পি. জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ড. খায়রুল কবির রুমেন বিগত কয়েকটি নির্বাচনে অংশগ্রহনের কথা শুনা গেলেও শেষ পর্যন্ত তিনি নির্বাচনে আসেননি। এবার তাঁর সাথে মুঠো ফোনে যোগাগোগ করা হলে তিনি জানান, “আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলে আমি নির্বাচন করব”।
টানা দুইবারের নির্বাচিত পৌরমেয়র আয়ূব বখ্ত জগলুলের মৃত্যুর পর সুনামগঞ্জ পৌরসভার বিগত উপ-নির্বাচনে ‘ধানের শীষ’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছেন দেওয়ান সাজাউর রাজা চৌধুরী সুমন। তাঁর ফোন বন্ধ থাকায় তাঁর মতামত জানা যায়নি।

এই সংবাদটি 36 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ