সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ৪:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৪, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:
নব নির্মিত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবনের নির্ধারিত প্রবেশ পথ পরিবর্তনের  পায়তারার প্রতিবাদে  বিকেল তিন ঘটিকায় সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির উদ্যোগে আইনজীবী সমিতির ৫ নং হলে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সিনিয়র এডভোকেট মোঃ আফতাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মোঃ বদর উদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সিনিয়র আইনজীবী জনাব বজলুল মজিদ খসরু সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন “আমরা আইনজীবীরা দীর্ঘদিন অনেক চেষ্টা করে সরকারের কাছ থেকে ১০ তলা বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন একটা ভবন পেয়েছি তার কাজও শেষ পর্যায়ে। এই ভবনটি শুধু আইনজীবীদের জন্য নয় আমাদের সাথে সংশ্লিষ্ট সুনামগঞ্জের জনসাধারণের জন্য। গণপূর্ত অধিদপ্তরের আওতায় কাজটি সম্পন্ন হচ্ছে। ২০১৬ সালে গনপুর্ত অধিদপ্তর এবং তৎকালীন জেলা প্রশাসক মহোদয় ও জানেন যে ভবনটির প্রস্তাবিত রাস্তা উত্তর দিকে অনুমোদন হয়েছে। আমাদেরকে ও তাঁরা নিশ্চিত করেছেন। এরপর আর কোন নতুন অনুমোদনের সিদ্ধান্ত হয়নি জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ও ব্যাপারটি জানেন। কিন্ত আমরা খুব ব্যাথিত বর্তমান জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ প্রস্তাবিত রাস্তাটি অন্যত্র সরানোর জন্য আমাদের না জানিয়েই মন্ত্রী পরিষদে চিঠি প্রেরন করেছেন। তিনি সুনামগঞ্জে আসার পরে কি কারনে রাস্তাটি সরানোর জন্য তৎপর হয়েছেন সেটা আমাদের বোধগম্য হচ্ছেনা”।
সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট জনাব আফতাব উদ্দিন বলেন “সুন্দর একটি স্থাপনা একদিনের জন্য নয় বাংলাদেশ যতদিন থাকবে ততোদিন এই স্থাপনা থাকবে জেলাপ্রশাসক আব্দুল আহাদ জানিনা কেন এই রাস্তা সরানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন। আমাদের আইনজীবী সমিতির ডাকে প্রথম সারা দিলেও পরে আর কোন যোগাযোগ না করেই রাস্তা অন্যদিকে ঘুরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছেন”।
সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট বদর উদ্দিন বিগত সাধারণ সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তগুলি পাঠ করে শুনান। সাংবাদিক সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি বিশিষ্ট কবি, সিনিয়র আইনজীবী রবিউল লেইস রোকেশ। সভায় সাবেক সভাপতি এডভোকেট মল্লিক মঈন উদ্দীন সোহেল, এডভোকেট সৈয়দ শামছুল ইসলাম, এডভোকেট শামছুদ্দিন, এডভোকেট তৈয়বুর রহমান বাবুল, সহ শতাধিক আইনজীবী সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

এই সংবাদটি 136 বার পঠিত হয়েছে