তাহিরপুরে পুত্রের র্সতার(যাঁতি)আঘাতে পিতা খুন, ঘাতক পুত্র আটক

প্রকাশিত: ২:৫৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৯, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক :
তাহিরপুরে পুত্রের হাতে খুন হয়েছেন পিতা ইসলাম উদ্দিন (৫২)। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাট বাজারে বাদাঘাট-সুনামগঞ্জ সড়কের বাদামপট্টিতে ছেলের দোকানের সামনে এ নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে। খুন হওয়া ব্যক্তি উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্ধ গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার পুত্র। ঘটনার পর পর পালিয়ে যাওয়া ঘাতক নাজমুল ইসলাম (২৫) কে অভিযান চালিয়ে রাতেই আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত ঘাতক নাজমুল ইসলাম নিহত ইসলাম উদ্দিন’র বড় ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বাদাঘাট বাজারে বাদামপট্টিতে নাজমুল হোসেনের দোকানের সামনে এসে তার বাবা ইসলাম উদ্দিন পারিবারিক বিষয়ে বকাঝকা করতে থাকেন। এক পর্যায়ে নাজমুল ক্ষিপ্ত হয়ে সুপারি কাটার সরতা(যাঁতি) দিয়ে বাবার মাথায় কয়েকটি আঘাত করে। এরপরই তার বাবা ইসলাম উদ্দিন দোকানের সামনে পাকা সড়কের ওপর সংজ্ঞাহীন হয়ে লুটিয়ে পড়েন। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এরপরই নাজমুল পালিয়ে যায়।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে বাদাঘাট বাজারে ছেলের দোকানের সামনে এসে পিতা ইসলাম উদ্দিন অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও তর্কবির্তক করছিল ছেলে নাজমুলের সঙ্গে । একপর্যায়ে ছেলে উত্তেজিত হয়ে হাতে থাকা সরতা (সুপারি কাটার যন্ত্র) দিয়ে পিতার মাথায় আঘাত করলে রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি । পরে আশেপাশে থাকা লোকজন স্থানিয় চিকিৎসকের কাছে তাকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন । সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে এবং গতকাল রবিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। ঘটনার পরপরই ঘাতক ছেলে পালিয়ে যায়। পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঐ রাতেই ঘাগটিয়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করে।
তাহিরপুর থানার ওসি মো. আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, বাদাঘাট বাজারে পারিবারিক কলহের জের ধরে ছেলের হাতে পিতা খুন হয়েছেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেছে। ঘাতক ছেলেকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘাগটিয়া গ্রাম থেকে আটক করেছে। এ বিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলার প্রস্ততি চলছে।

এই সংবাদটি 29 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ