সুনামগঞ্জের বাজারে সবজিতে স্বস্তি অপরিবর্তিত চাল

প্রকাশিত: ৩:০৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০২০

ইফতি রহমান :

বাজারে কমে এসেছে শীতকালীন সবজির দাম। কেজিতে অন্তত ১০ টাকা কমে এখন সব ধরনের সবজি পাওয়া যাচ্ছে। কমতি সবজির বাজারে ক্রেতারা কিছুটা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলছেন। তবে খুচরা বাজারে দেশি পেঁয়াজের দাম আবারও কিছুটা বেড়েছে। আর আগের মতোই বাড়তি রয়েছে চালের বাজার। নতুন ধান উঠতে শুরু করলে ও বাজারে কোনো প্রভাব পড়েনি।
গতকাল শুক্রবার জেল রোড, নদীরপাড় ও কিচেন মার্কেটের নীচতলার সবজির দোকান সহ কয়েকটি দোকান ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়। খুচরা বাজারে দেশি পেঁয়াজের দাম আবারও কিছুটা বেড়েছে। কোন কোন দোকানে ৯০ টাকা কেজিতেও দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে।
তবে বেশিরভাগ দোকানে ৮০ টাকা। আর পাইকারি বাজারে দেশি পেঁয়াজ ৭০ থেকে ৭৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মিশর ও চীনের পেঁয়াজ পাইকারি বাজারে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।
এ ছাড়া, পাইকারি বাজারে আলু ৪২ থেকে ৪৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর খুচরা বাজারে আলুর দাম ৫৫ থেকে ৬০ টাকা। জেল রোডের দোকানিরা জানান, ‘বাজারে আলুর দাম আগের মতোই রয়েছে।’ সবজির মধ্যে বেগুন ৬০ টাকা,ঝিঙ্গা ৫৫ টাকা, বটবটি ৫০ টাকা, পটল ৬০ টাকা, সিম ৬০/৬৫ টাকা, টমেটো ৯০/১০০ টাকা ও গাঁজর ৮০ টাকা, কাঁচামরিচ ১০০/১২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। নদীর পাড় এলাকার দোকানগুলোতে পেঁপে ৩০ টাকা, ঢেঁড়শ ৫০ টাকা, বটবটি ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, শিম ৫০, বেগুন ৫০ টাকা ও কড়লা ৬০ টাকা, টমেটো ১০০ ও গাঁজর ১০০ কেজিতে বিক্রি হতে দেখা গেছে। ফুলকপি ৪০ ও পাতা কপি ৩৫/৪০ এবং লাউ ৫০ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে। আর এই বাজারে শসা ৬০ থেকে ৮০ টাকা ও কাঁচামরিচ ১২০ টাকা টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর লেবু বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ৩০ টাকা হালিতে। এ ছাড়া দেশি পেঁয়াজ ৮০ টাকা, রসুন ১০০ টাকা। দেশি আদা ৯০ টাকা, আলু ৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা গেছে। আর নতুন আলু বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা কেজিতে। বাজারের বিক্রেতারা বলেন, কিছু সবজির দাম কেজিতে অন্তত ১০ টাকা করে কমেছে। নতুন করে কোনো সবজির দাম বাড়েনি।
এদিকে, বাজারে চালের দাম আগের বেড়েই চলেছে। বর্তমানে খুচরা বাজারে মিনিকেট ৬০ থেকে ৭০ টাকা, আটাশ ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, নাজিরশাইল ৭০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেল রোডের জনৈক চালব্যবসায়ী বলেন, ‘চালের দাম নতুন করে আর কমেনি। বাজার কিছুটা বাড়তি রয়েছে। ‘নতুন ধান উঠতে শুরু করলে ও চালের দাম কমেনি। ধানের দাম বাজারে বাড়তি রয়েছে। তাই চালের দামও বেশি।

এই সংবাদটি 158 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ