শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে সুনামগঞ্জ পৌর ডিগ্রি কলেজে আলোচনাসভা

প্রকাশিত: ৩:৩২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৪, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে সুনামগঞ্জ পৌর ডিগ্রী কলেজে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজ অধ্যক্ষ মো. শেরগুল আহমেদ’র সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার শুরুতে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক নোয়াজ উদ্দিন-এঁর পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- সহকারি অধ্যাপক শাহ মোঃ আবু নাসের, সহকারি অধ্যাপক শুভংকর তালুকদার মান্না, সহকারি অধ্যাপক রামানুজ রায় সাজু, প্রভাষক কাঞ্চন বৈদ্য, প্রভাষক শাহীনুল ইসলাম শাহীন, প্রভাষক তৈয়বুর রহমান তানিম, প্রভাষক ওসমান গণি,প্রভাষক মাণিক উল্লাহ, প্রভাষক আফাজ উদ্দিন প্রমুখ। এছাড়াও কলেজে কর্মরত সকল কর্মচারিগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।
সভায় বক্তারা বলেন, স্বাধীনতাসংগ্রামের সূচনা থেকে শুরু করে চূড়ান্ত বিজয়ের ঠিক আগমুহূর্ত পর্যন্ত বুদ্ধিজীবীদের হত্যায় মেতে উঠেছিল পাকিস্তানি সামরিক জান্তা। ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর দেশের ইতিহাসে এক কলঙ্কময় দিন। মহান মুক্তিযুদ্ধের শেষ পর্যায়ে মহান বিজয়ের ঠিক একদিন আগের এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসররা বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করার জন্য পরিকল্পিতভাবে দেশের সূর্যসন্তান- উচ্চশিক্ষিত জ্ঞানী-গুণী, দার্শনিক-মুক্তবুদ্ধিসম্পন্ন শিক্ষক, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, সঙ্গীতজ্ঞ ও সমাজসেবক বুদ্ধিজীবীদের নির্মমভাবে হত্যা করে। পাকিস্তানি সৈন্যরা আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে নিষ্ঠুর হত্যাযজ্ঞের পাশাপাশি পরিকল্পিতভাবে একে একে হত্যা করে এ দেশের বরেণ্য ব্যক্তিদের। এসব হত্যার কারণটি স্পষ্ট, পরাজয় নিশ্চিত জেনে তারা চেয়েছিল স্বাধীনতার পথে এগিয়ে যাওয়া দেশটিকে মেধায়-মননে পঙ্গু করে দিতে। এ দেশের স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার, আলবদর, আলশামস বাহিনীর মাধ্যমে তারা হত্যার এ নীলনকশা বাস্তবায়ন করে।
এ বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আমরা অতিক্রম করতে যাচ্ছি। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের সঠিক তালিকা প্রণয়ন ও তাঁদের সম্পদ রক্ষাসহ যথাযথ সম্মান নিশ্চিত করতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশত বার্ষিকী মুজিববর্ষে সরকারের নিকট জোর দাবি জানান বক্তারা।

এই সংবাদটি 56 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ