ছাতক-সিলেট রেলপথে ৯ মাস ধরে বন্ধ ট্রেন, চালু হবে কবে ?

প্রকাশিত: ৩:৪৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৭, ২০২০


রেজাউল করিম রেজা, ছাতক
ছাতক-সিলেট রেলপথে ৯ মাস ধরে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। করোনা ভাইরাসের কারণে সারা দেশের সাথে এ রেলপথেও ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়। পরবর্তীতে সকল রেলপথ চালু হলেও আজ পর্যন্ত এটি চালু হয়নি। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ট্রেনে যাতায়াতকারী এ অঞ্চলের যাত্রী সাধারণ। দ্রুত ট্রেন চালু করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন ভূক্তভোগি এলাকাবাসী।
জানা যায়, সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক একটি ব্যবসায়ীক কেন্দ্র। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এখানে ব্যবসা-বাণিজ্য চলে আসছে সেই বৃট্রিশ আমল থেকে। ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে এ উপজেলাটি দেশ-বিদেশে শিল্পনগরী হিসেবে পরিচিত। এ হিসেবে ১৯৫৪ইং সালে ছাতক-সিলেটে ৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলপথটি স্থাপিত হয়। ছাতকবাজার রেলষ্ট্রেশনের উদ্বোধন করেন, তৎকালিন পাকিস্তান সরকারের যোগাযোগ মন্ত্রী। উদ্বোধনের পর থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত যাত্রী সেবায় ট্রেন ছিল একনিষ্ঠ। ছাতকবাজার রেল ষ্ট্রেশন থেকে প্রতিদিন চারটি ট্রেন সিলেটে যাতায়াত করতো। এছাড়া মালামাল পরিবহনের ৪টি ট্রেনে সিমেন্ট, পাথর, চুনাপাথর, তেজপাতা ও কমলাসহ বিভিন্ন ধরনের কাঁচামাল কম খরচে পরিবহন করা হতো। ট্রেন চালুর শুরুর দিকে ছাতক থেকে সিলেটে যেতে ট্রেনে একজন যাত্রীর ভাড়া ছিল চার আনা। বর্তমানে ছাতক থেকে সিলেটের ভাড়া ১০টাকা। আগের তুলনায় ট্রেনের গতিও বৃদ্ধি পেয়েছে। ছাতক থেকে সিলেটে পৌঁছতে তার সময় লাগছে সর্বোচ্চ একঘন্টা ১০ মিনিট। করোনা ভাইরাসের কারণে সারা দেশের সাথে এ রেলপথে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। চলতি বছরের ২৩ মার্চ থেকে প্রায় ৯মাস ধরে বন্ধ রয়েছে যাত্রীবাহী ট্রেনটি। সম্প্রতিক সময়ে সারা দেশে ট্রেন চলাচল চালু হলেও প্রাচীনতম এ রেলপথে ট্রেন চালু করা হচ্ছে না। যাত্রীরাও ট্রেনের সেবা পাচ্ছে না। ট্রেন পরিবহনে স্বল্প ভাড়ার পরিবর্তে এ অঞ্চলের মানুষ সড়ক পথে এখন গুনতে হচ্ছে অধিক ভাড়া। সরকারও রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। কবে এ রেলপথে ট্রেন আবারও চালু হবে এমন প্রশ্নের উত্তর মিলছেনা কর্তৃপক্ষের কাছে। সাইফুল ইসলাম নামের একজন প্রাইভেট ব্যাংকের কর্মকর্তা বলেন, তিনি সিলেট শহর থেকে প্রতিদিন ট্রেনে ছাতক আসতেন। স্বল্প ভাড়ায় নিরাপদে যাতায়াত করতে অনেকটাই সুবিধা হতো। কিন্তু কয়েক মাস ধরে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় তিনি সড়ক পথে যাতায়াত করছেন।
বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন তালুকদার বলেন, অল্প খরচে নিরাপদে ছাতক থেকে সিলেটে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম রেলপথ। যখন সড়ক পথ ছিলনা তখন থেকে ছাতক-দোয়ারা ও কোম্পানীগঞ্জসহ এলাকার মানুষ ট্রেনে যাতায়াত করতেন। জমজমাট ছিল রেল ষ্টেশন ও আশপাশ এলাকা। তিনি বলেন করোনার কারণে বন্ধ হওয়া দেশের সকল ট্রেন আবার চালু হলেও এটি চালু না করায় এ অঞ্চলের নি¤œ আয়ের মানুষগুলো সড়ক পথে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে চলাচল করছে। ট্রেন চালু, জনবল বৃদ্ধি, রেললাইন সংস্কারের সাথে ট্রেনের বগি ও ষ্টেশন আধুনিকায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তিনি জোর দাবী জানান।
ছাতকবাজার ষ্টেশন মাষ্টার আবদুল মতিন ভুইয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তার মুল দায়িত্ব আফজালাবাদ ষ্টেশনে। ছাতকবাজার ষ্টেশনে তাকে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। কবে ট্রেন চালু হবে এ বিষয়ে তার জানা নেই। রেলওয়ে বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় এক সময়ের লাভজনক রেলপথসহ ষ্টেশনটি এখন লোকসানে পরিণত হচ্ছে। রেললাইনের পুরো সংস্কার, জনবল বৃদ্ধি ও আধুনিকায়নের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হলে আবারও রেলওয়ের এ বিভাগটি লাভের মুখ দেখবে। এমনটাই প্রত্যাশা করছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

এই সংবাদটি 157 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ