সিলেট বিভাগের ৭ পৌর এলাকার ৪ স্তরের নিরাপত্তা বলয় – আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৫ হাজার সদস্য মাঠে

প্রকাশিত: ৩:২৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২১

ইফতি রহমান সিলেট থেকে :
সিলেট বিভাগের ৭ পৌরসভার নির্বাচন উপলক্ষে ৪ স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। গত বুধবার থেকে মাঠে নেমেছেন ৭ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। মোতায়েন করা হয়েছে ২১ প্লাটুন বিজিবি সদস্য। বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ, আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় ৫ হাজার সদস্য মাঠে রয়েছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। আজ শনিবার সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ, ছাতক, জগন্নাথপুর, কমলগঞ্জ, কুলাউড়া, মাধবপুর ও নবীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সিলেটের রেঞ্জ ডিআইজি অফিসের পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোঃ জেদান আল মুসা বলেন, নির্বাচন কমিশনের চাহিদা ও নির্দেশনা অনুযায়ী ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। ভোটাররা যাতে নির্বিঘেœ ভোট কেন্দ্রে আসতে পারেন ও ভোট দিতে পারেন-এজন্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে থাকবেন। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা কাজ করবেন।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, একটি ভোট কেন্দ্রে ৪ জন পুলিশ, ব্যাটালিয়ান আনসার, সাধারণ আনসারসহ মোট ১৩ জন দায়িত্ব পালন করবেন। ভোট কেন্দ্রের বাইরে নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবেন পুলিশের একটি টিম। সাদাপোশাকে থাকবেন পুলিশ সদস্যরা। এছাড়াও, প্রতিটি পৌর এলাকায় ৮ জন করে থাকবে র‌্যাবের টহল টিম। একইভাবে ৮ জনের রিজার্ভ টিমও থাকবে। একটি পৌরসভায় র‌্যাবের ৩২ সদস্যের টহল টিম এবং ৩২ সদস্যের রিজার্ভ টিম থাকবে। প্রতি পৌরসভায় থাকবে ৩ প্লাটুন বিজিবি। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে কাজ করবে বিজিবি।
জানা গেছে, ৭ পৌরসভার জন্যে ৭ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করে গত ১০ জানুয়ারি প্রজ্ঞাপন জারী করে নির্বাচন কমিশন।‘স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০’ অনুযায়ী এই প্রজ্ঞাপন জারী করা হয়। সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কুদরত-এ-এলাহী সুনামগঞ্জ পৌরসভায়, সুনামগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শুভা দীপ পাল, ছাতক পৌরসভায়,জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: রাগীব নুর জগন্নাথপুর পৌরসভায়, মৌলভীবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম হোসনে আরা বেগম কমলগঞ্জ পৌরসভায়,জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এম. মিজবাহ উর রহমান কুলাউড়া পৌরসভায়, হবিগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নূরুল হুদা চৌধুরী মাধবপুর পৌরসভায় ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পবন চন্দ্র বর্মন নবীগঞ্জ পৌরসভার দায়িত্ব পালন করবেন।
১৪ জানুয়ারি থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত তারা এই দায়িত্বে থাকবেন। নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনী সহিংসতার তাৎক্ষনিক বিচার কার্যক্রম করবেন।
সূত্র জানায়, ৭ পৌরসভায় ১ হাজার ৫০ জন বিজিবি সদস্য, প্রায় ১ হাজার র‌্যাব সদস্য, প্রায় ১ হাজার ৫০০ পুলিশ সদস্য, আর্মড পুলিশ, ব্যাটালিয়ন আনসার, সাধারণ আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় ৫ হাজার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। ভোট কেন্দ্রের পাশাপাশি কেন্দ্রের আশপাশ এলাকায় ও থাকবে বিশেষ নজরদারি। থাকবে স্ট্রাইকিং ফোর্স।
জানা গেছে, ৭ পৌরসভার মোট ভোট কেন্দ্র ৯১টি। ভোট কক্ষ ৪৭৮টি। সুনামগঞ্জ পৌরসভার মোট ভোটার ৪৭ হাজার ০১৫ জন। পুরুষ ২৩ হাজার ২৩৮ জন ও ২৩ হাজার ৭৭৭ জন হলেন মহিলা ভোটার। ছাতক পৌরসভার মোট ভোটার ৩০ হাজার ২৮০ জন। পুরুষ ভোটার ১৫ হাজার ২৭১ জন ও মহিলা ১৫ হাজার ৯ জন। জগন্নাথপুর পৌরসভার মোট ভোটার ২৮ হাজার ৬৪২ জন। পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৩৯২ জন ও মহিলা ১৪ হাজার ২৫০ জন। কমলগঞ্জ পৌরসভার মোট ভোটার ১৩ হাজার ৯০৫ জন। পুরুষ ৬ হাজার ৮৮৭ জন ও মহিলা ভোটার ৭ হাজার ১৮ জন। কুলাউড়া পৌরসভার মোট ভোটার ২০ হাজার ৭৬৯ জন। পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ২২৮ জন ও মহিলা ভোটার ১০ হাজার ৫৩১ জন। নবীগঞ্জ পৌরসভার মোট ভোটার ১৮ হাজার ৬৯৯ জন। পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ১৩৯ জন ও ৯ হাজার ৫৬০ জন হলেন মহিলা ভোটার। মাধবপুর পৌরসভার মোট ভোটার ১৫ হাজার ৯৮৭ জন। পুরুষ ভোটার ৮ হাজার ১০৭ জন ও ৭ হাজার ৮৮০ জন হলেন মহিলা ভোটার।
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, ৭ পৌরসভার ৯১ ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৭০টিরও বেশি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুকিপূর্ণ কেন্দ্রের দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অতিরিক্ত নজরদারি থাকবে। ঝুকিপূর্ণ কেন্দ্রে থাকবে অধিক জনবল। নির্বাচন কমিশন সূত্র জানিয়েছে, অবাধ, শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ভোটাররা নির্বিঘ্নে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন।

 

এই সংবাদটি 48 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ