আজ পহেলা বৈশাখ ‘দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক’ পদার্পণ করল সপ্তম বর্ষে ।

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৩, ২০২১

সুলেমান কবির:
“নব আনন্দে জাগো আজি নব রবি কিরণে শুভ্র সুন্দর প্রীতি-উজ্জ্বল নির্মল জীবনে”। আজ পহেলা বৈশাখ,১৪২৮ বঙ্গাব্দ ২০২১ ইং ১৪ এপ্রিল বুধবার। গত ২০১৫ ইংরেজি ১৪ এপ্রিল ১৪২২ বঙ্গাব্দ ১ লা বৈশাখ দৈনিক সুনামগঞ্জ ডাক’র শুভ সুচনা হয়েছিল। সময়ের পরিক্রমায় ছয়টি বছর অতিক্রম করে দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক সপ্তম বর্ষে পদার্পণ করলো। আজ সেই মাহেন্দ্রক্ষণ দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক’র শুভ জন্মদিন।সপ্তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক’র সম্পাদক ও প্রকাশক অধ্যক্ষ শেরগুল আহমেদ পাঠক, শুভানুধ্যায়ী, শুভাকাঙ্খী ও সুনামগঞ্জের সর্বস্তরের জেলাবাসীকে জানিয়েছেন নববর্ষের শুভেচ্ছা। সকল দুঃখ দূর্দশা গ্লানিময় অতীতকে ভুলে নতুনের পথে এগোবার বার্তা নিয়ে এল ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। মহাকালের গর্ভে হারিয়ে গেল আরও একটি বছর। আজ বুধবার ভোরে উদিত হলো নতুন বছরের সূর্য। পহেলা বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দের শুভ সুচনা।১৪২৭ বঙ্গাব্দকে বিদায় জানিয়ে আমরা পা রেখেছি ১৪২৮ বঙ্গাব্দে।নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে আমরা প্রস্তুত। গত হলো ১৪২৭ বঙ্গাব্দ আমাদের সব দুঃখ-কষ্ট, আনন্দ-বেদনা কালের মহাস্রোতে হবে ইতিহাস। যা স্মৃতি হয়ে থাকবে আমাদের ব্যক্তি এবং সামাজিক জীবনে।বিদায়ী এ বছরটি আমাদের জাতীয় জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক এবং শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশ ঘটনাবহুল একটি বছর। নানা ক্ষেত্রে অনেক চ্যালেঞ্জ এসেছে। ঘটেছে উত্থান-পতন।সব এখন ইতিহাসের পাতায় কেবলই স্মৃতি হয়ে লিপিবদ্ধ হবে। বাঙালিদের নতুন বছরের সবচেয়ে বড় আমেজ পাওয়া যায় বাংলা নববর্ষে ।কারণ, নতুন বছরকে ঘিরে কত পরিকল্পনা, আশা ভরসার বিষয় জড়িয়ে আছে। উৎসব প্রিয় আমরা প্রতিটি উৎসবেই আনন্দ ভাগ করে নিয়ে থাকি প্রিয়জনদের সাথে।পুরোনো সকল দুঃখ-দুর্দশাকে ভুলে গিয়ে নতুনভাবে জীবন শুরু করার একটা অনুপ্রেরনা দিতেই হাজির হয় নতুন বছর। তেমনই সুযোগ নিয়ে হাজির হল ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। এটাই সুযোগ জীবনকে নতুনভাবে সাজানোর। এটাই হয়ত চলমান করোনাকে বিদায় জানানোর বছর।সফলতা-ব্যর্থতা, আনন্দ-বেদনা, হাসি-কান্না সব মিলিয়েই কাটে আমাদের প্রতিটা বছর। কিন্ত ১৪২৭ বঙ্গাব্দ যেন আমাদের প্রজন্মের সবচেয়ে বেদনাময় একটি বছর ছিল । করোনা মহামারীতে সারা বিশ্বে লাখ লাখ মানুষের প্রাণহানি গোটা বছরই আমাদেরকে করে রেখেছে ঘরবন্দী। হারিয়েছি বন্ধু বান্ধব আত্মীয় স্বজন, প্রিয়জন। সব কিছু পিছনে ফেলে এরই মধ্যে চলে এলো নতুন বছর। করোনাকে বিদায় দিয়ে হয়ত এই বছর হয়ে উঠবে আবার একটি স্বাভাবিক বছর এটা সারা দেশবাসীর কাম্য। হয়তো আমরা ফিরে পাবো স্বাভাবিক জীবনযাত্রা।নতুন বছরের আগমনে আমরা প্রত্যেকের হৃদয়ে নতুন কিছু আশা, আকাংখার বীজ বপণ করছি। সকলকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু হল জীবনে নতুন অধ্যায় ।নতুন বছরে শুধু নিজেকেই নতুনভাবে গড়লে হবেনা। প্রিয়জনকে নিয়েই আমাদের জীবন। তাই তাঁদেরকেও জানাচ্ছি শুভ কামনা। “পুরনোকে ভেবে মন খারাপ হয় না যেন কারও। শুধু ভালবাসা গুলো থেকে যাক সব হৃদয়ে যেমনি ছিল যার”।
পৃথিবীর সমস্ত জাতির ন্যায় আমরা গোটা বাঙালি জাতি বৈশ্বিক মহামারী করোনার দূর্যোগকাল অতিক্রান্ত করছি। চলমান বৈশ্বিক মহামারী “করোনা” বিশ্বজুড়ে শতাব্দীর চরম বিপর্যয় । ইতিহাসের পাতায় কালের সাক্ষী হয়ে থাকবে অনন্তকাল। অদৃশ্য এক অনুজীবের কাছে সারা বিশ্বের মানুষ করুনভাবে বিপর্যস্ত । এই করুন বিপর্যয়ে কতো উজ্জীবিত প্রাণ নিষ্প্রাণ হয়ে নিভে গেছে ম্রিয়মাণ প্রদ্বীপের মতো। “করোনা’ আতঙ্কে পৃথিবী ধুকছে। করোনার ক্রান্তিলগ্নে গত একবছর থেকে বিপর্যস্ত মানুষের জীবন। বিপর্যস্ত ও বিপন্ন সংকটের মূহুর্তে সব আনন্দই আজ নিরানন্দে পরিণত হয়েছে । কোভিড-১৯ মহামারীর থাবায় বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশের ন্যায় আমাদের দেশেও প্রাণহানির ঘটনা অব্যাহত রয়েছে। দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল।দেশে হু হু করে বাড়ছে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। প্রতিদিনই ভাঙছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর রেকর্ড। ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবন যাপন তৈরী হয়েছে অর্থনৈতিক সংকট।দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক কভিড ১৯ মানবতার সংকট হিসাবে আখ্যায়িত করে প্রতিদিন ফলাও করে সংবাদ প্রকাশ করেছে । দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক চলমান মহামারি এই সংকট কাটিয়ে আগামীর বাংলাদেশ হউক সুরক্ষিত করোনামুক্ত এই আশাবাদ ব্যাক্ত করছে । আলোকিত সমাজ গড়ার প্রত্যয়ে দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক’র পথচলা। নিরপেক্ষ, বস্তনিষ্ট সংবাদ পরিবেশনে সবার আস্থা অর্জন করে আজ সপ্তম বর্ষে পদার্পণ করলো। আধুনিক সভ্যতার শ্রেষ্ঠ বাহন সংবাদপত্র। সংবাদপত্র সমস্ত বিশ্বের নতুন নতুন খবর নিয়ে প্রতিদিন সকালে আমাদের দ্বারাপ্রান্তে এসে হাজির হয় । গণতান্ত্রিক যে কোনো দেশে তা সুস্থ গণতান্ত্রিক সমাজের দর্পণ । সমাজ গঠনের দৈনন্দিন পরিস্থিতির সঙ্গে সম্পৃক্ততায় এবং নিরন্তর তার বস্তনিষ্টা উপস্থাপনায় সংবাপত্র শক্তিশালী গণমাধ্যম। জনমতের প্রতিফলনে ও জনমত গঠনে সংবাদপত্র পালন করে শক্তিশালী ভূমিকা, গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় বহু দল ও মতের ধারক- বাহক হিসেবে সংবাদপত্র সরকার ও জনগণের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা করে। দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক এর ধারাবাহিকতায় এবং সে লক্ষেই সুনামগঞ্জ জেলা ও বাংলাদেশের চারদিকে ঘটমান সব খবর সত্যতা অনুসন্ধান করে এবং তা বিশ্লেষণ করে প্রতিদিনের পাতায় লিপিবদ্ধ করে পাঠকের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। আপামর জনগণের মৌলিক অধিকার অন্ন,বস্ত্র,বাসস্থান, শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং বিশেষজ্ঞদের সুচিন্তিত মতামত ও পরামর্শ নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে জনসমক্ষে তুলে ধরছে। সমাজের অসংগতি, দমননীতি নিপিড়ন, নির্যাতন ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপোষহীনভাবে সবার আগে সব খবর প্রকাশ করে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে আসছে। সরকারের উন্নয়ন সহ দেশের বিভিন্ন কার্যক্রম প্রতিদিন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। এছাড়াও শিল্প সাহিত্য, খেলাধুলা সহ সুস্থ বিনোদন সাংস্কৃতিক কর্মকা- সুন্দরভাবে উপস্থাপন করে আসছে।সংবাদপত্র যে পর্যাবৃত্তিতেই প্রকাশিত হোকনা কেন তা অবশ্যই হতে হবে সর্বশেষ সত্য সংবাদে পূর্ণ। আর সেই আদর্শের ভিত্তিতে সবকিছু যাচাই করে সর্বাধিক তথ্যানুসন্ধান করে গুরুত্বসহকারে দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক সংবাদ প্রকাশ করে থাকে। এই পত্রিকাটি সার্বজনীন। কোনো বিশেষ ধর্ম, বর্ণ বা বিশেষ গোষ্টিকে উদ্দেশ্য করে প্রকাশ হয় না বা অন্য গোষ্টিকে তাচ্ছিল্য করে না।
এই সংবাদপত্র যে কেবল সংবাদ পরিবেশন করে তা নয়, জনমতের প্রতিফলন ও জনমত গঠনেও সুনামগঞ্জের ডাক’র রয়েছে ইতিবাচক ভূমিকা। সংবেদনশীল ও নীতিবহির্ভূত কোন খবর প্রকাশ করেনা। সদা সত্যের পথে অবিচল গতিতে অব্যাহত রেখেছে ডাক’র পদচারণা। কোন বিজ্ঞাপন ছাড়াই স্বমহিমায় প্রতিদিন প্রকাশিত হয়ে আসছে। দৈনিক সুনামগঞ্জের ডাক বৈশ্বিক মহামারীর কারণে আজ প্রথমবারের মতো প্রতিষ্টাবার্ষিকী পালন করলো তেমন কোন আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই।পৃথিবী হউক করোনামুক্ত। সুস্থ ও সুরক্ষিত থাকুক সবাই। ঘরের বাইরে গেলে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করবেন।নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন, জনসমাগম এড়িয়ে চলুন। পৃথিবী আবার শান্ত হবে সেই প্রত্যাশায় সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

এই সংবাদটি 88 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ