প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান আ’লীগ নেতা সুয়েবুর রহমান

প্রকাশিত: ৩:৩৫ অপরাহ্ণ, মে ১২, ২০২১

ইফতি রহমান :

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতেই রাজনীতির হাতেখড়ি- বরেণ্য রাজনীতিবিদ, বিশ্বনেতা, ধরণিকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র একান্ত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন আসে। করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন উৎপাদন নিয়ে গবেষণা করার সময় আগে থেকেই অগ্রিম টাকা দিয়ে বাংলাদেশে ভ্যাকসিন নিয়ে আসার ব্যবস্থা করেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের আগেই ভ্যাকসিন এনে দেশের মানুষের মানসিক শক্তি ও মনোবল বৃদ্ধি করেছেন এবং করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন। গৃহহীন ও অসহায় মানুষের ঘর তৈরী করে দিয়ে আশ্রহীনদের স্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করে মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন গরীবদের আর্থিক প্রণোদনা, নন এমিপও শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্রদের আর্থিক সহযোগিতা করে ঈদের আনন্দকে বাড়িয়ে দিয়েছেন। বিশ্বে মহামারি করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে চার-প্রস্তাবনা তুলে ধরেন এবং বিশ্ববাসীর প্রশংসা অর্জন করেন। মহামারি ও সংকটময় সময়ে সাহসী ভূমিকায় তাঁকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান সিলেট মদনমোহন কলেজের প্রভাষক ও ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ সুয়েবুর রহমান সুয়েব।
প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র প্রচেষ্টার উপহার হিসেবে সবার আগে করোনা ভ্যাকসিন টিকা গ্রহনের ইচ্ছা ছিল কিন্তু বয়সের কারণে পারা যায়নি। এজন্য ১০/০২/২০২১তারিখে নিবন্ধন করেন ১৬/০২/২০২১ তারিখে ম্যাসেজ পান ২০/০২/২০২১ তারিখ সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে টিকা নেয়ার জন্য। ঐদিন ১ম ডোজের করোনা ভ্যাকসিন টিকা নেন এবং ২য় ডোজের ম্যাসেজ পেয়ে ১২/০৫/২০২১ইং তারিখ বুধবার সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে করোনা ভ্যাকসিন টিকা গ্রহন করেন প্রভাষক মোহাম্মদ সুয়েবুর রহমান। ভ্যাকসিন পুশ করেন সিনিয়র স্টাফ নার্স কাওছার আলী। সহযোগিতা ও উৎসাহ দেন যুব রেড ক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিটের সেচ্ছাসেবকযোদ্ধা শোয়েব আহমদ ও মাছুমা সহ অনেকেই।
প্রভাষক সুয়েব বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশেকে সচল রাখতে ও অর্থনীতির চাকা চালু রাখতে সব ধরনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর অগ্রযাত্রার সহযোগিতার অংশ হিসেবে করোনা ভাইরাস মহামারির শুরু থেকেই নিজের কলেজের বেতন ও পরিবারের সহযোগিতায় সিলেট মহানগরী থেকে সুনামগঞ্জের টাংগুয়ার হাওরসহ জেলার দুর্গম এলাকায় মানুষের পাশে থেকে সহযোগিতা করে যাচ্ছি। আর ভেবেছি কখন করেনা ভাইরাস প্রতিরোধের ভ্যাকসিন আসবে, নিজে কখন ভাইরাসে আক্রান্ত হবো এ নিয়ে চিন্তা করিনি। আল্লাহর রহমতে এ আঁধার কেটে যাবে।
মোহাম্মমদ সুয়েবুর রহমান সুয়েব মহান আল্লাহর দরবারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের দীর্ঘায়ু ও সুস্থতার জন্য দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন। তিনি যেন সুস্থ থেকে দেশের জন্য কাজ করতে পারেন। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকবৃন্দ, ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান, বাংলাদেশ ও বিশ্বের অন্যান্য গবেষকদেরকে ধন্যবাদ, কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানান। মহামারী করেনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণের বিশ্বের গবেষণগণ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। চীনের উহান প্রদেশ থেকে করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। চীন তাদের প্রযুক্তির মাধ্যমে তার দেশ করোনা ভাইরাসমুক্ত করেছে। বন্ধু দেশ হিসেবে চীন-রাশিয়ার প্রযুক্তি ও ভ্যাকসিন ব্যবহার করার জন্য, সকলকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনার জন্য এবং দেশেই ভ্যাকসিন উৎপাদনের মাধ্যমে দেশের চাহিদা পূরণ করা যাবে এবং বিদেশে ভ্যাকসিন রপ্তানি করে বৈদেশিক মূদ্রা অর্জন করে দেশের সুনাম বয়ে আনার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ জানান। ডাক্তার, নার্স, প্রশাসন, গণমাধ্যমযোদ্ধা, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, মানবিকযোদ্ধা, সেচ্ছাসেবক সহ সকল করোনা যোদ্ধাগণকে ধন্যবাদ – কৃতজ্ঞতা জানান। তাঁদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন। মহামারি- সংকটময় এ সময়ে সকল পর্যটন, হোটেল-মোটেল, কমিউনিটি সেন্টার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, নির্বাচন, সভা-সমাবেশ, সম্মেলন, বিনোদন কেন্দ্র করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত বন্ধ রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চান।
প্রভাষক মোহাম্মদ সুয়েবুর রহমান সুয়েব সরকারি বিধি নিষেধ মেনে ঈদ উদযাপন ও চলাচলের জন্য সকলকে অনুরোধ করেন এবং সবাইকে জানান পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক।

এই সংবাদটি 280 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ