জগন্নাথপুরে বিধিনিষেধের ২য়দিনে সড়ক ফাঁকা কিন্তু বাজারে জনসমাগম বেশি

প্রকাশিত: ৫:১৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২১

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি:
লকডাউন, তার মধ্যে আবার সকাল থেকে বৃষ্টি। সবমিলে বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার (২ জুলাই) সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার সড়ক গুলো ফাঁকা থাকলেও বাজার গুলোতে জন সাধারনের ভিড় দেখা যায়। অনেকেই সকালে বের হয়েছেন নিত্য-প্রয়োজনীয় পণ্য কেনাকাটা করতে। বৃষ্টির কারণে মানুষকে খুব একটা জটলা বেঁধে থাকতে দেখা যায়নি।
উপজেলা ইউএনও পেইজ সূত্রে জানা যায়, কঠোর বিধিনিষেধ কার্যকর ও স্বাস্থ্যাবিধি নিশ্চিত করতে জগন্নাথপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থাানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। এ সময় সচেতনতা সৃষ্টি, ক্রেতা বিক্রেতাকে স্বাস্থ্যাবিধি প্রতিপালন বিষয়ে সতর্ক করা সহ জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়। রাস্তায় গতকালের তুলনায় শুক্রবার সকালে রিকশা ও ব্যক্তিগত গাড়ি একেবারেই কম চোখে পড়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বৃহস্পতিবারের (১ জুলাই) কড়াকড়ির কারণে অনেকেই বাইরে বের হননি। জরিমানা ও মামলার কারণে প্রাইভেট গাড়ি এবং মোটরসাইকেলের উপস্থিাতিও কম ছিল। অন্য দিকে উপজেলার বাজার গুলোতে ব্যাটারী চালিত রিকশা চলাচল করতে দেখা যায়। এ উপজেলা প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকায় হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে ব্যাংক বন্ধ থাকায় প্রবাসী নির্ভর পরিবার গুলো বিপাকে পড়েছেন। বিশেষ করে অনেকের পিন নাম্বারে টাকা আসলেও ব্যাংক বন্ধ থাকায় ও আগামী সোমবার ব্যাংক খোলার সময় পর্যন্ত ধৈর্য্য ধরতে নারাজ। বার বার ব্যাংকের লোকদের সাথে ফোনে কথা বলে ব্যাংক খোলার সময় জেনে নিচ্ছেন।
গতকালের ন্যায় আজও উপজেলার প্রাণ কেন্দ্র পৌর শহরে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। জরুরি ছাড়া কাউকে বাইরে যেতে দেয়া হচ্ছে না। সকালের দিকে গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন সেবা প্রতিষ্ঠানের যানবাহন যাতায়াত করতে দেখা গেছে। পণ্যবাহী কিছু যান চলেছে। তবে সংখ্যা গতকালের তুলনায় কিছুটা কম হলেও উপজেলার বাজারের রোডে পণ্যবাহী পরিবহনের পাশাপাশি রিকশা ও ইজিবাইক চলাচল করতে দেখা যায়। কেউ নিয়ম না মানলেই তাদের শাস্তির আওতায় আনতে সড়কে রয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এই সংবাদটি 51 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ