করোনা টিকার অগ্রাধিকার তালিকায় আইনজীবীদের অন্তর্ভূক্তির নির্দেশ

প্রকাশিত: ৫:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ৫, ২০২১


মিনহাজ অভি:
করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন পাওয়ার অগ্রাধিকার তালিকায় (সুরক্ষা অ্যাপস) অন্তর্ভূক্ত হলেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের তালিকাভুক্ত সকল আইনজীবী। এবিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বার কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিনকে চিঠি দিয়ে অবহিত করা হয়েছে। হাইকোর্ট গত ৩০ জুন এক আদেশে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন পাওয়ার অগ্রাধিকার তালিকায় (সুরক্ষা অ্যাপস) অন্তর্ভূক্ত করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। এ আদেশের পর রবিবার (৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (এমআইএস ও লাইন ডাইরেক্টর, এইচআইএস অ্যান্ড হেল্থ) অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরে বার কাউন্সিল চেয়ারম্যান বরাবর একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘উপরিউক্ত বিষয়ের আলোকে আপনার সদয় অবগতি ও কার্যার্থে জানানো যাচ্ছে যে, কোভিড.১৯ অতিমারিতে আইনপেশায় নিয়োজিত আইনজীবীরা কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে আইনসেবা ও পরামর্শ কার্যক্রম চালু রেখেছেন। নিরবিচ্ছিন্ন আইনসেবা কার্যক্রম চালু রাখতে সকল আইনজীবীদের টিকাদানের আওতায় আনা আবশ্যক। যেসকল আইনজীবী এখনো সুরক্ষা সিস্টেমে রেজিস্ট্রেশন করেননি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকাদানের জন্য তাদের সুরক্ষা সিস্টেমে রেজিস্ট্রেশন করা প্রয়োজন। রেজিস্ট্রেশন এর পূর্বে তাদেরকে সুরক্ষা সিস্টেমে হোয়াইটলিস্টিং করা আবশ্যক। এমতাবস্থায় তালিকা প্রণয়নের জন্য আপনার আওতাধীন সকল রেজিস্টার্ড আইনজীবীদের ঘওউ সংযুক্ত ছক মোতাবেক নিম্ন লিখিত ই-মেইলে এক্সেল ফরমেটে ঘরশড়ংয ঋড়হঃ-এ প্রেরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।’ করোনার ভ্যাকসিন প্রদানের অগ্রাধিকার তালিকায় ১৯ ধরনের ব্যক্তিদের নাম অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের তালিকাভূক্ত আইনজীবীদের অন্তর্ভূক্তি চেয়ে গত ১১ এপ্রিল রিট আবেদন করেন অ্যাডভোকেট মো. আবু তালেব। এ রিট আবেদনে গত ১৩ এপ্রিল রুল জারি করেন হাইকোর্ট। চার সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়। এই রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে গত ৩০ জুন আইনজীবীদের অন্তর্ভূক্তির নির্দেশ দেওয়া হয়। এর আগে গতবছর ৩ ডিসেম্বর আইনজীবী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনা ভ্যাকসিনের আওতায় আনতে স্বাস্থ্য সচিবের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোনো সাড়া না পাওয়ায় রিট আবদেন করা হয়।

এই সংবাদটি 52 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ