ছোটমনি নিবাসে শিশু নাবিল হত্যা: ঘাতক আয়ার স্বীকারোক্তি

প্রকাশিত: ৪:২০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০২১


ইফতি রহমান:
সিলেটের সমাজসেবা অধিদপ্তরের অধীনস্থ বাগবাড়িস্থ ছোটমনি নিবাসে ২ মাস বয়সের শিশু নাবিল আহমদ খুনের ঘটনায় ঘাতক আয়া সুলতানা ফেরদৌসী সিদ্দিকা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। জবানবন্দীতে তিনি নিজের দায় স্বীকার করেছেন। বিষয়টি গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) মো. ইয়াছিন।
তিনি বলেন,‘আদালতে দেওয়া জবানবন্দীতে তিনি নিজের দায় স্বীকার করেছেন আয়া সুলতানা ফেরদৌসী সিদ্দিকা। উপর থেকে ছুড়ে ফেলার সময় খাটের লোহায় শিশুটির মাথা লেগে যায়। এর ফলেই শিশু নাবিলের মৃত্যু হয়। আসামী দোষ স্বীকার করায় রিমান্ডের প্রয়োজন হয়নি।’ তবে পুলিশ এখনও জবানবন্দীর কপি পায়নি বলে জানিয়েছেন কোতোয়ালি থানার ঐ কর্মকর্তা।
গতকাল শনিবার (১৪ আগস্ট) বিকেল ৪টার দিকে তাকে সিলেট মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক সাইফুর রহমানের আদালতে তাকে প্রেরণ করা হয়।
আয়া সুলতানা ফেরদৌসী সিদ্দিকা গত ২২ জুলাই ছোটমনি নিবাসে ২ মাস ১১ দিন বয়সের নাবিল আহমদকে প্রথমে সজোরে ছুড়ে ফেলেন এবং পরে বালিশচাপা দিয়ে খুন করেন।
এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে ঘাতক আয়া সুলতানাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ। পরদিন শুক্রবার তার বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এস.আই) মাহবুব মন্ডল বাদি হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন।
এদিকে, অবুঝ শিশু নাবিলকে হত্যার পর ঘটনাটি গোপন রাখেন ছোটমনি নিবাসের দায়িত্বে থাকা উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। এ কারণে তদন্তসাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।

এই সংবাদটি 17 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ